শীঘ্রই প্রাইমারিতে বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি আসতে পারে

adminsr
2 Min Read
প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়ন ও প্রাথমিকে শিক্ষক সংকট নিরসনকল্পে ২০১৮ সালের ২২ মে তারিখে একনেক বৈঠকে “Primary Education Development Project-4” (PEDP-4) অনুমোদন দেওয়া হয়। সেই প্রজেক্টটি ২০১৮ থেকে ২০২৩ সালের জুন মাসের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নের কথা রয়েছে।
“পিইডিপি-৪” কর্মসূচির আওতায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১,৬৫,১৭৪ জন শিক্ষক নিয়োগ ও ১,৩৯,০০০ শিক্ষককে প্রশিক্ষণ দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।
এইজন্য দেখবেন, ২০১৮ সালের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে অনেক বড় নিয়োগ হয় এবং ২০২০ সালের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৮ সালের নিয়োগের রেকর্ড ভাঙতে যাচ্ছে।
২০১৮ সালের ৩০ জুলাই প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।
২০১৯ সালের ২৪ ডিসেম্বর সেই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ১৮ হাজার ১৪৭ জনকে নিয়োগের চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করেছিল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।
এর পর ২০২০ সালের ১৮ অক্টোবর নতুন আরও একটি বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।  সেই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, ২০২২ সালে এপ্রিল-জুন তিন ধাপে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শোনা যাচ্ছে এই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে প্রায় ৫০,০০০ প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ হতে পারে।
অবশ্য এর মাঝে পার্বত্য অঞ্চলের জন্য আলাদাভাবে প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এখন যদি ধরে নেওয়া হয়, ২০১৮ সালের বিজ্ঞপ্তির ১৮,১৪৭ + ২০২০ সালের বিজ্ঞপ্তির ৫০,০০০ + পার্বত্য অঞ্চলের নিয়োগ = ৭০ হাজার (প্রায়)।
কিন্তু “পিইডিপি-৪” কর্মসূচি অনুযায়ী ১,৬৫,১৭৪-৭০,০০০ = ৯৫,০০০ (প্রায়)
তার মানে, এখনো প্রায় ৯৫ হাজার প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ বাকি রয়েছে “পিইডিপি-৪” অনুযায়ী।  যা বাস্তবায়ন করার কথা রয়েছে ২০২৩ সালের জুন মাসের মধ্যে।
যদিও মাঝে প্রায় ২ বছর সময় করোনা নিয়ে গেছে। তারপরও আশা করা যায় যে, করোনার কারণে কর্তৃপক্ষ যদি প্রকল্প বাস্তবায়নের সময় বাড়ায়ও, ২০২০ সালের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি সম্পন্ন হলে নতুন করে বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি আসতে পারে প্রাইমারি স্কুলে নিয়োগের জন্য। আর সেটা যেমন প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষার জন্য কল্যাণকর হবে, ঠিক একইভাবে করোনাতে ক্ষতিগ্রস্ত চাকরিপ্রত্যাশীদের ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নিতে সহায়ক হবে।

Share this Article
Leave a comment