1. bdculture2020@gmail.com : bdculture :
হযরত ফাতেমা (রাঃ) ও হযরত আলী (রাঃ) এর ছোট্ট একটি সাংসারিক ঘটনা - BD CULTURE
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৩ পূর্বাহ্ন

হযরত ফাতেমা (রাঃ) ও হযরত আলী (রাঃ) এর ছোট্ট একটি সাংসারিক ঘটনা

মিশকাত রায়হান
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ৩০ জুলাই, ২০২১
হযরত আলী (রাঃ) এর ছোট্ট একটি সাংসারিক ঘটনা
এক দিন মা ফাতেমা (রাঃ) হযরত আলী (রাঃ) কে বলল স্বামী ঘরে কিছু সুতা কেটেছি, এগুলো আপনি বাজারে বিক্রি করে ক্ষুধার্ত দু’সন্তান হাসান  ও হোসেন (রাঃ) এর জন্য কিছু আটা নিয়ে আসেন।
হযরত আলী (রাঃ) সুতা গুলো নিয়ে বাজারে ৬ দিরহামের বিনিময়ে বিক্রি করলেন। এমন সময় এক অসহায় ছাহাবা হযরত আলী (রাঃ) কে বলল আলী, কিছু দিরহাম কর্য হবে! আমার ঘরে বাচ্চারা না খেয়ে আছে। একথা শুনে হযরত আলী (রঃ) নিজের ঘরের কথা চিন্তা না করে সুতা বেচা ৬ দিরহাম ঐ অসহায় ছাহাবাকে দিয়ে দিলেন।
কিছুক্ষন পর দেখল বাজারে এক ব্যক্তি একটি উট নিয়ে হযরত আলী (রাঃ) এর নিকট এসে বলল, আলী উট নিবে! হযরত আলী (রাঃ) বলল নিব, কিন্তুু দিরহাম (টাকা) নাই। লোকটি বলল নাও, দিরহাম (টাকা) পরে দিলে চলবে। এ বলে লোকটি চলে গেল, কিছুক্ষন পর আরও একটি লোক এসে হযরত আলীকে বলল, আলী তোমার উটটি বিক্রি করবে? নগদ ৩০০ দিরহাম দিব।
হযরত আলী (রঃ) বললেন নাও, নগদ ৩০০ দিরহাম দাও। হযরত আলী (রঃ) ৩০০ দিরহাম দিয়ে উটটি বিক্রি করে উটের আসল মালিককে খুজতে লাগল। কিন্তুু পুরু বাজারে উটের আসল মালিককে খুজে না পেয়ে ঘরে চলে আসল। ঘরে এসে দেখল, নবীজি (সঃ) ফাতেমা (রাঃ) এর সাথে বসে আছেন। নবীজি (সঃ) মুচকি হাসি দিয়ে বললেন, আলী! উটের ঘটনা আমি বলব, নাকি তুমি বলবে?
হযরত আলী (রঃ) হয়রান হয়ে বললেন, ইয়া রসুলাল্লাহ (সঃ) আপনি বলুন। নবীজি (সঃ) বললেন, আলী প্রথম যে তোমাকে উট বাকীতে দিয়ে ছিল, সে হচ্ছে হযরত জিব্রাঈল (আঃ) আর পরে ৩০০ দিরহাম দিয়ে যে উটটি কিনে ছিল, সে হযরত ইস্রাফিল (আঃ)। উট ছিল জান্নাতের ফাতেমা (রাঃ) এর, যা দিয়ে জান্নাতে ফাতেমা (রাঃ) সওয়ার হবেন।
তুমি যে অসহায় ছাহাবাকে সুতা বেচা ৬ দিরহাম কর্য দিয়েছিলে, তাহা আল্লাহর নিকট খুব পছন্দ #চমৎকার একটি কাহিনী- এক দিন মা ফাতেমা (রা:) হযরত আলী (রা:) কে বলল, স্বামী ঘরে কিছু সুতা কেটেছি, বাজারে বিক্রি করে ক্ষুধার্ত দু’সন্তান হাসান ও হোসেনের জন্য কিছু আটা নিয়ে আসেন।
হযরত আলী (রা:) সুতা গুলো নিয়ে বাজারে ৬ দিরহামে বিক্রি করলেন। এমন সময় এক অসহায়  হযরত আলী (রা:) কে বলল আলী, কিছু দিরহাম কর্য হবে! আমার ঘরে বাচ্চারা না খেয়ে আছে। একথা শুনে হযরত আলী (র:) নিজের ঘরের কথা চিন্তা না করে সুতা বেচা ৬ দিরহাম ঐ অসহায় ছাহাবাকে দিয়ে দিলেন।
কিছুক্ষন পর দেখল বাজারে এক ব্যক্তি একটি উট নিয়ে হযরত আলীর নিকট এসে বলল, আলী উট নিবে! হযরত আলী (রা:) বলল নিব, কিন্তুু দিরহাম (টাকা) নাই।লোকটি বলল নাও,  টাকা পরে দিলে চলবে। এ বলে লোকটি চলে গেল, কিছক্ষন পর আর একটি লোক এসে হযরত আলীকে বলল, আলী তোমার উটটি বিক্রি করবে? নগদ ৩০০ দিরহাম দিব। হযরত আলী (র:) বললেন নাও, নগদ ৩০০ দিরহাম দাও। হযরত আলী (র:) ৩০০ দিরহাম দিয়ে উটটি বিক্রি করে উটের আসল মালিককে খুজতে লাগল। কিন্তুু পুরু বাজারে উটের আসল মালিককে খুজে না পেয়ে ঘরে চলে আসল। ঘরে এসে দেখল, নবীজি (স:) মা ফাতেমার সাথে বসে আছেন। নবীজি (স:) মুচকি হাসি দিয়ে বললেন, আলী! উটের ঘটনা আমি বলব, নাকি তুমি বলবে! হযরত আলী (র:)হয়রান হয়ে বললেন, ইয়া রসুলাল্লাহ (স:) আপনি বলুন।
নবীজি (স:) বললেন, আলী প্রথমে যে তোমাকে উট বাকীতে দিয়ে ছিল, সে হচ্ছে হযরত জিব্রাঈল (আ:) আর পরে ৩০০ দিরহাম দিয়ে যে উটটি কিনে ছিল, সে হযরত ইস্রাফিল (আ:)। উট ছিল জান্নাতের মা ফাতেমার, যা দিয়ে জান্নাতে মা ফাতেমা (রা:) সওয়ার হবেন।
তুমি যে অসহায় ছাহাবাকে সুতা বেচা ৬ দিরহাম কর্য দিয়েছিলে, তাহা আল্লাহর নিকট খুব পছন্দ হয়েছে, আর তাহার বদলা আল্লাহ দুনিয়াতেই তোমাকে দিয়েছেন আর আখেরাতে পুরস্কৃত করবেন। সুবহানাল্লাহ।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

Categories

© All rights reserved © 2019 bdculture
                          কারিগরি সহায়তায় রাফিউল ইসলাম