1. bdculture2020@gmail.com : bdculture :
চেরাপুঞ্জি পৃথিবীর সবথেকে আদ্রতম জায়গা  - BD CULTURE
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৪২ অপরাহ্ন

চেরাপুঞ্জি পৃথিবীর সবথেকে আদ্রতম জায়গা 

দুলারফিন তাপস
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ১৬ জুন, ২০২১
চেরাপুঞ্জি
চেরাপুঞ্জি পৃথিবীর সবথেকে আদ্রতম জায়গা যেখানে সব সময় কোথাও না কোথাও বৃষ্টি হতে থাকে। চেরাপুঞ্জিতে সারাদিন এবং সারাবছর বৃষ্টি হয়। এটি পৃথিবীর সর্বাধিক বৃষ্টিপাত স্থান। ভারতের বিখ্যাত কয়েকটি ঝর্নার মধ্যে বেশ কয়েকটি রয়েছে এখানে। শিলং থেকে এখানের দূরত্ব প্রায় ৫০ কি.মি. যেতে সময় লাগে প্রায় ২ ঘন্টার মত। চেরাপুঞ্জির হাইওয়েতে ( বড় রাস্তায়)  সবসময় বৃষ্টি পড়তে থাকে আর এর যত বেশি কাছাকাছি যাওয়া যায় তত বেশি বৃষ্টিপাত দেখা যায়। প্রথমে যে ঝর্নাটার দেখা মেলে সেটা হচ্ছে ওয়েসে ডং ঝর্না। বাইরে থেকে বোঝার উপায় নাই যে এখানে একটি ঝর্না থাকতে পারে।
বেশ কিছুটা নিচে নামতেই এই ঝর্নার দেখা মেলে। এখানে সবসময় বৃষ্টি হয়। বিশাল বড় একটা জায়গা চারিপাশ পাথর ও মেঘের জলরাশির ছ’টায় দৃষ্টিনন্দন প্রাকৃতিক দৃশ্যে যে কেউ বিমোহিত হবে। এরপরেই আছে ওয়াকাবা ফলস্ ( ঝর্না/ জলপ্রপাত)। একটি পাথর ভ্যালি থেকে আসলে এই ঝর্নার উৎপত্তি। আগেরটার থেকে এটার পার্থক্য হচ্ছে আগেরটা বেশকিছু নিচে যেয়ে উপভোগ করতে হয় আর এটির একেবারে উপরের পাহাড়ে অবস্থান করে এর সৌন্দর্য উপভোগ করতে হয়। এখানে রয়েছে আরো একটি বিখ্যাত ঝর্না নোয়াখালিকা। এটা আসলে অনেকটা মেঘ আর কুয়াশার মত একটা জায়গা।
আপনার ভাগ্য ভাল থাকলে পরিষ্কার একটা দৃশ্য দেখতে পারবেন আর যদি ভাগ্য ভাল না হয় তাহলে কোনকিছুই হয়তোবা কোনদিন দেখতে পারবেন না। এই ঝর্নার নামকরণের পিছনে একটি গল্প আছে। গল্পটি এমন, অনেক বছর আগে খালিকায় নামের এক খাসিয়া মহিলা ছিলো এখানে তার একটি বাচ্চা ছিলো তার আগের স্বামীর ঘরে। সে থাকতো তার দ্বিতীয় স্বামীর সঙ্গে। একদিন সে কাজ সেরে এসে দেখে যে তার স্বামী তার জন্য গোস্ত ( মাংশ) রান্না করে রেখেছে। সে খাওয়ার সময় একটি আঙ্গুল দেখতে পায় এবং টের পায় যে তার ছেলেকে রান্নাকরে তাকেই খাইয়েছে। এটা সে সহ্য করতে না পেরে এই ঝর্নার উপর থেকে লাফ দিয়ে আত্নহত্যা করে। এবং সেই থেকে এই ঝর্নার নাম হয় নোয়াখালিকা। চেরাপুঞ্জির সবথেকে বিখ্যাত ঝর্না হচ্ছে সেভেন সিস্টার্স ফলস্। এর নাম সেভেন সিস্টার্স দেওয়া হয়েছে কারন এর মূল ঝর্নাধারা হচ্ছে ৭টি। বিশাল এক উঁচু পাহাড়ের উপর এই ঝর্না অবস্থিত। এখান থেকে পুরো চেরাপুঞ্জির ভ্যালিটা দেখতে পাওয়া যায়।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

Categories

© All rights reserved © 2019 bdculture
                          কারিগরি সহায়তায় রাফিউল ইসলাম